west bengal student credit card

West Bengal Student Credit Card এ আবেদন কবে থেকে শুরু হবে এবং কেমন করে আবেদন করবেন ?

আমরা ইতিপূর্বে WBSCC এর Student Credit Card সম্বন্ধে আলোচনা করেছি যদি আপনারা না দেখে থাকেন উপরিউক্ত টেক্সটে ক্লিক করলে আমাদের আগের ব্লগটি ভিজিট করতে পারবেন। আমাদের আগের ব্লগে Student Credit Card Scheme সম্বন্ধে সম্পূর্ণ আলোচনা করা সম্ভব হয়নি। যেসমস্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাবলী আগের আলোচনায় বাকি ছিল তা সব কিছুই আলোচনা করা হবে আজ এই ব্লগটিতে, দয়া করে শেষ পর্যন্ত লেখাটি পড়বেন। যদি আপনারা এখনও পর্যন্ত আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা Student Credit Card Scheme এর সম্বন্ধে ডিটেলস নিবন্ধটি না পড়ে থাকেন অবশ্যই টেক্সট এ ক্লিক করে সেটা আগে পড়ে নিন সেক্ষেত্রে এই ব্লগটি বুঝতে আপনার সুবিধা হবে। 

জানুন Student Credit Card Scheme সমন্ধে সমস্ত প্রাথমিক তথ্য

WBSCCS সম্বন্ধে আলোচনা করার আগে একটি কথা জানিয়ে রাখি যে, বিভিন্ন কারণবশত এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটটি এতদিন পর্যন্ত লাইভ করা সম্ভব হয়নি কিন্তু সম্প্রতি পাওয়া তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, আগামী 30.06.2021 তারিখে এই ওয়েবসাইটটি লাইভ হওয়ার খুব সম্ভাবনা রয়েছে । ওয়েবসাইটটি লাইভ হওয়ার পর থেকে আপনারা এই লোনের জন্য অনলাইনে আবেদন  করতে পারবেন।

WBSCC এর Student Credit Card Scheme আবেদনের Step by Step প্রক্রিয়া-

আমরা আগেই বলেছিলাম West Bengal State Co-Operative Bank এর মাধ্যমে এই লোনটি প্রদান করা হবে। এক্ষেত্রে লোন পাওয়ার জন্য আগে থেকেই ব্যাংকে সেভিং একাউন্ট খোলার কোনো প্রয়োজন নেই কারণ আপনি যখন লোনের জন্য আবেদন করবেন তখনই আপনার জন্য একটি আলাদা লোন একাউন্ট খুলে দেওয়া হবে।

1st Step:

এই লোনের সুবিধা নেওয়ার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম অফিশিয়াল ওয়েবসাইট লোনের জন্য আবেদন করতে হবে যা আগামী 30 শে জুন থেকে চালু করা হবে।

2nd Step:

দ্বিতীয় পর্যায়ে আপনার দ্বারা Student Credit Card Scheme এর জন্য আবেদন করা আবেদন পত্রটি বর্তমানে আপনি যে  স্কুল বা কলেজে পড়ছেন সেখানে জমা দিতে হবে।

3rd Step:

তৃতীয় পর্যায় আপনার স্কুল বা কলেজ থেকে আবেদনপত্রটি পাঠানো হবে Department of Higher Education কতৃপক্ষের কাছে ।

Final Step:

চতুর্থ পর্যায়ে ব্যাংক থেকে আপনার সমস্ত ডিটেলস যথাযথভাবে যাচাই করে আপনার অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটি লোনের জন্য অনুমোদন করা হবে।

Bigyani Kanya Medha Britti Scholarship কি ,তারিখ, যোগ্যতা সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

Student Credit Card Scheme সম্বন্ধে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:

  • এই লোনটি সম্পূর্ণভাবে Colleteral Security Free লোন। সাধারণ ব্যাংকের 4 লাখ টাকা অবধি লোন Colleteral Security Free দেওয়া হয় কিন্তু এক্ষেত্রে আপনি 10 লাখ টাকার লোন পাচ্ছেন Colleteral Security Free অর্থাৎ আপনি 10 লাখ টাকা লোন পাবেন কোনো গ্যারান্টার ছাড়াই। লোন নেওয়ার পর আপনি পশ্চিমবঙ্গ তথা সম্পূর্ণ ভারত এবং বিদেশে পড়াশোনা করতে পারবেন (প্রাইভেট এবং গভর্মেন্ট উভয় ইনস্টিটিউট এর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য)।

 

  • এই Student Credit Card Scheme এর লোনে সুদের হার 4 শতাংশ। যেই দিন আপনাকে লোনের রাশি প্রদান করা হবে সেদিন থেকেই আপনার ইন্টারেস্ট শুরু হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে পড়াশোনা চলাকালীন  আপনি যদি সুদের টাকাটা পে করতে থাকেন তাহলে আপনি কিছু ছাড় পাবেন সম্পূর্ণ টাকা পেমেন্ট করার ক্ষেত্রে।

 

  • যারা যারা হোস্টেলে থেকে পড়াশোনা করছেন তারাও হোস্টেলের খরচ মেটানোর সুযোগ এই ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে লোন নেওয়ার সুযোগ পাবেন। যদি কোনো কারণে হোস্টেল না পেয়ে থাকেন কোনো বাড়ি ভাড়া করে নিজের খরচে রয়েছেন সেক্ষেত্রে সেই টাকাটা আপনি এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন।

 

  • সমস্ত রকমের প্রফেশনাল কোর্সের জন্য এই লোনের সুযোগ পাবেন। বই/কম্পিউটার বা ল্যাপটপ সহ অন্যান্য সামগ্রী কেনার ক্ষেত্রে এই ধরনের সাহায্য পাবেন।

 

  • উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে Study Tour, Project Work সহ অন্যান্য কারিকুলাম এক্টিভিটিজ অংশগ্রহণ করতে হয়, আর যার জন্য ভালো রকমের টাকা খরচ হয় এক্ষেত্রে এই স্টুডেন্ট লোন এই খরচগুলো কভার করবে।

 

  • নন ইনস্টিটিউশনাল এক্সপেন্স অর্থাৎ ল্যাপটপ বা কম্পিউটার কেনা, স্টাডি টুর তথা এই টাইপের খরচের জন্য সম্পূর্ণ লোনের 30 শতাংশ খরচ করতে পারবেন। যদি আপনার কোর্স ফি 10 লাখ টাকা হয় সেক্ষেত্রে আপনাকে 30% যোগ করে আবেদন করতে হবে।

 

  • যারা হোস্টেলে বা মেস ভাড়া করা রয়েছেন সেক্ষেত্রে তারা সম্পূর্ণ লোন এমাউন্ট এর মধ্যে 20 শতাংশ খরচ করতে পারবেন অর্থাৎ যদি আপনার কোর্স ফি 10 লাখ টাকা হয় সেক্ষেত্রে আপনাকে 20% যোগ করে আবেদন করতে হবে।

Sitaram Jindal Scholarship কেমন করে আবেদন করবেন ? জানুন সমস্ত প্রয়োজনীয় তথ্য

Student Credit Card Scheme লোনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা:

  1. আবেদনকারীকে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  2. মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, UG, PG সহ বিভিন্ন ভোকেশনাল কোর্স যারা পড়াশোনা করছেন তারা সবাই এর জন্য আবেদন করতে পারবেন ।
  3. পশ্চিমবঙ্গের বাইরে পড়াশোনা করলেও এর জন্য আবেদন করা যাবে।
  4. প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার ক্ষেত্রে যারা UPSC, PSC এবং আরও অন্যান্য সরকারি চাকরির জন্য প্রিপারেশন নিচ্ছেন তারাও এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন ।
  5. আবেদনকারী বয়স 40 বছর নিম্নে থাকতে হবে।

Quantam Finance এবং Security সম্বন্ধে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:

  • একজন আবেদনকারী সর্বাধিক 10 লাখ টাকা পর্যন্ত পাবেন।
  • পড়াশোনা চলাকালীন যে কোন সময় আপনি WBSCC লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
  • লোন অ্যাপ্লিকেশন টি অবশ্যই আবেদনকারী অথবা Co-borrower  দ্বারা সাবমিট করতে হবে।
  • WBSCC লোনের জন্য আবেদনের সঙ্গে সঙ্গে ব্যাংক থেকে আবেদনকারীর একটি লাইভ কভার ইন্সুরেন্স করিয়ে দেওয়া হবে। উক্ত ইন্সুরেন্সের প্রিমিয়ামের টাকাটি লোন এমাউন্ট থেকেই কাটা হবে। যা সাধারণত সব ব্যাংক লোনের ক্ষেত্রেই দেখা যায়।
  • Student Credit Card Scheme এর জন্য আবেদনের সময় আপনাকে একটি এগ্রিমেন্টে সিগনেচার করতে হবে ব্যাংকের নিয়ম অনুসারে।
  • ব্যাংক কখনোই আপনাকে লোন নেওয়ার পর সিকিউরিটি অ্যামাউন্ট রাখার জন্য অথবা বন্দক হিসেবে সম্পত্তি ব্যাংকের কাছে রাখতে জোর দিতে পারবেনা।
  • 4 লাখ টাকা অবধি আপনার মার্জিন মানি 0 অর্থাৎ আপনি যদি 4 লাখ টাকার লোন এর জন্য আবেদন করে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনাকে এক্সট্রা কোন টাকা পে করতে হবে না।
  • 4 লাখের বেশি লোন নিলে আপনাকে সেই এমাউন্টের 5% ইনস্টিটিউটকে দিতে হবে এবং বাকিটা ব্যাংকে। এই নিয়মটি সাধারণত হোম লোনের ক্ষেত্রেও দেখা যায়।
  • লোন রি পেমেন্টের জন্য আপনি প্রথম এক বছর Moratorium হিসেবে ছাড় পাবেন।

যেমন ধরুন আপনি B.A অনার্সে 2021 এ ভর্তি হয়েছেন এবং আপনি 2024 এ পাস করে যাবেন এক্ষেত্রে আপনি যদি চান 2024 থেকেই লোনের টাকা পে করতে পারবেন পরবর্তী 15 বছরের জন্য আর যদি মনে করেন পূর্বে উল্লেখিত পয়েন্ট অনুযায়ী এক বছরের Moratorium ও পেতে পারেন।

Student Credit Card Scheme এর ধার্য্য রাশি কেমন করে পাবেন:

সরাসরিভাবে হাতে আপনি সমস্ত টাকা পাবেন না । শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা ইনস্টিটিউশনের খরচের ক্ষেত্রে ব্যাংক এর তরফ থেকে সেই টাকাটি ডাইরেক্ট উক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা ইনস্টিটিউশনকে পে করে দেওয়া হবে। কম্পিউটার, বই , হোস্টেল ফি সহ অন্যান্য খরচ এর ক্ষেত্রে টাকাটা আপনি নিজের ব্যাংক একাউন্টে পেয়ে যাবেন। 

      আশা করি আজকের Student Credit Card Scheme বিষয়ে এই নিবন্ধটি আপনাদের ভাল লেগেছে এবং আপনাদের প্রয়োজনে লেগেছে । আপনাদের কাছে একটাই অনুরোধ এই নিবন্ধটি খুব ঠান্ডা মাথায় একবারে বুঝতে না পারলে আবার পড়ুন কারণ এখানে অনেক কয়েকটি টেকনিক্যাল ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে যা সাধারণ মানুষের পক্ষে জানা সম্ভব নয়। তাই প্রয়োজন হলে বাড়ির কোন বড়োদের অথবা এমন কারো সাহায্য নিয়ে পুরো ব্লগটি পড়ুন যার ব্যাংকিং সেক্টর সম্বন্ধে একটু জ্ঞান রয়েছে, তাহলে আপনার সব পয়েন্টগুলো বুঝতে সুবিধা হবে। ধন্যবাদ আপনাদের মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *