Aikyashree Scholarship

Aikyashree Scholarship (2021) কি ,তারিখ, যোগ্যতা সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

শিক্ষার মান বৃদ্ধি এবং সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষকে শিক্ষিত করে তোলার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার সর্বদা সচেষ্ট । প্রত্যেক বছরই পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ত্রাণ তহবিল থেকে বিভিন্ন শ্রেণীতে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বিভিন্ন রকমের স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে যার মধ্যে Aikyashree ScholarshipRupashree Prakalpa  এর সাথে Aikyashree Scholarship যা পশ্চিমবঙ্গের নিম্নবর্গীয় ও মধ্য বর্গীয়  ছাত্রীদের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখে । বাংলার ঐক্য ও সংহতি রক্ষায় এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের (যেমন মুসলিম, খ্রিস্টান, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ, ফারসী ইত্যাদি) শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য পশ্চিমবঙ্গের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী শ্রীমতি মমতা বন্ধোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরনায় 2012-2013 অর্থবছরের রাজ্য বাজেটে চালু করা হয় এই Aikyashree (ঐক্যশ্রী ) Scholarship । 

 

     পশ্চিমবঙ্গের Minority বা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সাহায্যের জন্য মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঐকশ্রী প্রকল্প চালু করেন যা WBMDFC (West Bengal Minority Development and Finance Corporation) এর অন্তর্গত । ঐক্যশ্রী প্রকল্পের মাধ্যমে প্রাপ্ত টাকা ছাত্রছাত্রীরা তাদের সম্পূর্ণ শিক্ষাগত খরচে ব্যয় করতে পারবেন, যার মধ্যে হোস্টেল ফি স্কুল ফি, কলেজ এডুকেশনের ফি ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ।  

West Bengal Student Credit Card এ আবেদন কবে থেকে শুরু হবে এবং কেমন করে আবেদন করবেন ?

Aikyashree Scholarship কি?

 পশ্চিমবঙ্গে তপশিলি জাতি ও উপজাতির মতো সংখ্যালঘু বিভিন্ন সম্প্রদায় যেমন- মুসলিম, খ্রিস্টান, বৌদ্ধ, জৈন, ইত্যাদি মধ্যেও বহু মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করেন । পরিবারে আর্থিক অভাব-অনটনের কারণে সেই সমস্ত পরিবারের প্রায়শই ছেলেমেয়ে পড়াশোনা ছেড়ে দিয়ে বিভিন্নরকম কাজের সাথে যুক্ত হয়ে পড়েন ফলে রয়ে যায় তাদের মধ্যে শিক্ষার অভাব । এইসমস্ত সমস্যাগুলি দূরীকরণের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী Minority বা সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীদের একটি স্কলারশিপের মাধ্যমে কিছু আর্থিক সাহায্য প্রদানের ব্যবস্থা করেন যা Aikyashree Scholarship নামে পরিচিত । Aikyashree Scholarship আর্থিক ভাবে পিছিয়ে থাকা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের WBMDFC এর অধীনে শুরু করা হয় । 

 

নাম গুরুত্বপূর্ণ তথ্য
স্কলারশিপ Aikyashree Scholarship
রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ
স্পনসর WBMDFC (West Bengal Minority Development and Finance Corporation)
ডিপার্টমেন্ট  Minority Affairs and Madrasah Education Department
কারা যোগ্য  ক্রিশ্চিয়ান, মুসলিম, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন সহ অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছাত্রাছাত্রী ।
স্কলারশিপ টাইপ রাজ্য সরকার স্কিম
অফিসিয়াল সাইট www.wbmdfcscholarship.in

www.wbmdfc.org

আবেদন প্রক্রিয়া শুরু   1st Week  January
আবেদন প্রক্রিয়া শেষ  Last January

 

Aikyashree Scholarship চালু করার উদ্দেশ্য কি? 

  1. Minority বা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পিছিয়ে পড়া ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিকভাবে সাহায্য প্রদান করা যা তাদের পড়াশোনা চালিয়ে যেতে সাহায্য করবে ।
  2. সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত মহিলাদের স্বাবলম্বী করে তোলা ।
  3. শিক্ষার সাহায্যে সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের সচ্ছল করে তোলা । 
  4. ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন চাকরির প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত করা । 
  5. বিভিন্ন রকমের ট্রেনিং, প্রোগ্রাম সহ শিক্ষাব্যবস্থায় তাদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য উৎসাহিত করা ।  
  6. পশ্চিমবঙ্গে তাদের সাক্ষরতার হার বাড়ানো ।

 

Aikyashree Scholarship এর প্রকারভেদ বা ধরনঃ –

মূলত তিনটি ভাগে বিভাজন করে ছাত্রছাত্রীদের ঐক্যশ্রী প্রকল্প প্রদান করা হয়ে থাকে । যেমন- 

  • Pre-matric Scholarship
  • Post-Matric Scholarship
  • Merit-Cum-Means Scholarship

Nabanna Scholarship (2021) কি ,তারিখ, যোগ্যতা সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

কারা Aikyashree Scholarship এর সুবিধা নিতে পারবেন?

ঐক্যশ্রী প্রকল্প সমস্ত রূপে চালনা করা হয় WBMDFC এর মাধ্যমে । এই প্রকল্পের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন মাইনোরিটি কমিউনিটি, যেমন – ক্রিশ্চিয়ান,মুসলিম, শিখ, বৌদ্ধ ,জৈন সহ অন্যান্য মাইনোরিটি জাতিভুক্ত ছাত্রছাত্রীরা আর্থিক সাহায্য লাভ করতে পারবেন । সকল ছাত্রছাত্রীদের যেভাবে পর্যায় ভিত্তিক স্কলারশিপটি প্রদান করা হয় তা নিম্নরূপ: 

  • Pre-matric Scholarship: এটির মাধ্যমে সাধারণত Class 1 থেকে Class 10 পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীদের স্কলারশিপ প্রদান করা হয় । 
  • Post-Matric Scholarship: এটির মাধ্যমে সাধারণত Class 11 থেকে Ph.D. পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীদের স্কলারশিপ প্রদান করা হয় । 
  • Merit-Cum-Means Scholarship: এই স্কলারশিপের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রফেশনাল কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের স্কলারশিপ প্রদান করা হয়।

 

Aikyashree Scholarship এ আবেদনের যোগ্যতাঃ 

তিন ধরনের স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য অবশ্যই যোগ্যতা কিছুটা আলাদা হবে, যার সম্পূর্ণ ডিটেইলস নিম্নে আলোচনা করা হলো । 

Pre-matric Scholarship এর ক্ষেত্রে- 

  1. আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে ।
  2. আবেদনকারীর Minority বা সংখ্যালঘু সপ্রদায়ের হওয়া বাঞ্ছনীয় ।
  3. রাজ্য / কেন্দ্র সরকারের কোনো স্বীকৃত শিক্ষাবোর্ডর দ্বারা পরিচালিত বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্থায় থাকতে হবে ।
  4. পূর্ববর্তী ফাইনাল পরীক্ষায় অন্ততপক্ষে 50% মার্কস থাকতে হবে । 
  5. পারিবারিক বার্ষিক ইনকাম 2 লাখ টাকার বেশি হওয়া চলবে না ।
  6. পশ্চিমবঙ্গের বাইরের ইনস্টিটিউটে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা Pre-matric Scholarship এর জন্য যোগ্য নয় । 

Sitaram Jindal Scholarship কেমন করে আবেদন করবেন ? জানুন সমস্ত প্রয়োজনীয় তথ্য

Post-matric Scholarship এর ক্ষেত্রে- 

  1. আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে ।
  2. আবেদনকারীর Minority বা সংখ্যালঘু সপ্রদায়ের হওয়া বাঞ্ছনীয় ।
  3. রাজ্য / কেন্দ্র সরকারের কোনো স্বীকৃত শিক্ষাবোর্ড / কাউন্সিল / বিশ্ববিদ্যালয় / ইনস্টিটিউশনে অধ্যয়নরত অবস্থায় থাকতে হবে ।
  4. এই স্কলারশিপের জন্য আবেদনকারীরা নিম্নে একাদশ শ্রেণি (XI) থেকে পোস্ট গ্রাজুয়েশন (PG) লেভেল পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন ।
  5. পূর্ববর্তী ফাইনাল পরীক্ষায় অন্ততপক্ষে 50% মার্কস থাকতে হবে । 
  6. পারিবারিক বার্ষিক ইনকাম 2 লাখ টাকার বেশি হওয়া চলবে না ।
  7. পশ্চিমবঙ্গের বাইরের ইনস্টিটিউটে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা Pre-matric Scholarship এর জন্য যোগ্য নয় । 

 

Merit-Cum-Means Scholarship এর ক্ষেত্রে-

  1. আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে ।
  2. আবেদনকারীকে অবশ্যই প্রযুক্তিগত / পেশাদার কোর্সে অবশ্যই ভর্তি হতে হবে ।
  3. আবেদনকারীর উচ্চমাধ্যমিক / স্নাতক / PG এর পরীক্ষায় কমপক্ষে 50% নম্বর প্রাপ্ত থাকতে হবে ।
  4. পারিবারিক বার্ষিক ইনকাম 2.5 লাখ টাকার বেশি হওয়া চলবে না ।
  5. পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও ফাইন্যান্স কর্পোরেশন কর্তৃক জারি করা নতুন বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের বাইরে অবস্থিত প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করা শিক্ষার্থীরাও আবেদনের জন্য যোগ্য ।

Rupashree Prakalpa কি ? আপনি কি আবেদন করতে পারবেন জানুন সমস্ত তথ্য 

Aikyashree Scholarship এর মাধ্যমে কত টাকা পাওয়া যায়? 

  • Pre-matric Scholarship এর ক্ষেত্রে –

ক্লাস I থেকে V এর ছাত্রছাত্রীরা – 1,100 টাকা ।

ক্লাস VI থেকে X এর ছাত্রছাত্রীরা – 4,400 টাকা থেকে 11,000 টাকা । 

 

  • Post-matric Scholarship এর ক্ষেত্রে –

ক্লাস XI থেকে XII এর ছাত্রছাত্রীরা – 7,700 টাকা থেকে 15,200 টাকা ।

স্নাতক (Graduation) থেকে স্নাকোত্তর (PG) এর ছাত্রছাত্রীরা – 3,300 টাকা থেকে 16,500 টাকা ।

 

  • Merit-Cum-Means Scholarship এর ক্ষেত্রে –

মেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং, ম্যানেজমেন্ট, আইন ইত্যাদি কোর্সের ছাত্রছাত্রীরা – 22,000 টাকা থেকে 33,000 টাকা ।

 

Aikyashree Scholarship এর প্রাপ্ত অর্থের  টাকার পরিমান- 

  Aikyashree Scholarship

উপরে দেওয়া ছবিটি ডাউনলোড করার জন্য নিম্নে দেওয়া ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করুন-

    Click Here To Download                   

   Aikyashree Scholarship এর জন্য কিভাবে আবেদন করবেন?

এই প্রকল্পের আবেদন অনলাইন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করতে হবে যা নিম্নে স্টেপ ভিত্তিক পর পর বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করা হলো – 

1st Step;

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে প্রথমে এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের WBMDFC পোর্টালে গিয়ে New Registration অপশনে ক্লিক করতে হবে । 

2nd Step;

এই পর্যায়ে আবেদনকারী যে জেলায় বসবাস করেন সেই জেলাটি সিলেক্ট করতে হবে । 

3rd Step;

জেলা সিলেক্ট করার পরে আবেদনকারীর সমস্ত ডিটেইলস চাইবে, যেখানে নিজের নাম, অভিভাবকের নাম, জন্মতারিখ, আধার নম্বর, মোবাইল নাম্বার, ইমেইল আইডি সহ ব্যাংক একাউন্টের নম্বর যথাযথভাবে ফিলাপ করতে হবে । 

4th Step;

উপরিউক্ত সমস্ত বিবরণ সঠিকভাবে পূরণ করার পর Submit and Proceed অপশনে ক্লিক করতে হবে ।

5th Step;

Submit and Proceed করার পর একটি নতুন পেজ ওপেন হবে যেখানে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতার সমস্ত তথ্য যেমন- বর্তমানে আপনি কোন ইনস্টিটিউশনে পড়াশোনা করছেন, এটি কোথায় অবস্থিত, এটি কোন বোর্ডের অধীনে অন্তর্ভুক্ত, বর্তমানে কোন ক্লাসে পড়াশোনা করছেন, এর আগের বছর কোন ক্লাসে ছিলেন, এর আগের ক্লাসে কত শতাংশ নম্বর পেয়েছেন, আপনার পারিবারিক আয় কত ইত্যাদি ।

6th Step;

আগের মতোই উপরিউক্ত সমস্ত বিবরণ সঠিকভাবে পূরণ করার পর Submit and Proceed অপশনে ক্লিক করতে হবে । এই পর্যায়ে আপনার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে কিন্তু বাঁকি থাকবে ফর্ম ফিলাপ প্রক্রিয়া ।  

7th Step;

এই পর্যায়ে Submit and Proceed করার পর একটি ইউজার আইডি তৈরি হয়ে যাবে যার পাসওয়ার্ড আপনার দ্বারা প্রদত্ত ইমেইল আইডিতে কিংবা SMS এর মাধ্যমে তৎক্ষণাৎ পাঠানো হবে যা আপনার ফোনের Gmail Inbox অথবা Massage চেক করলে পেয়ে যাবেন । 

8th Step;

তারপর এই পর্যায়ে আপনাকে Student Log In অপশনে গিয়ে আপনার ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে । তারপর, এখানে আপনার কিছু বেসিক ইনফরমেশন যেমন একাডেমি ইনফর্মেশন, ব্যাংক একাউন্ট ইনফর্মেশন প্রদান করতে হবে । আপনার যদি পাসওয়ার্ড চেঞ্জ প্রয়োজনীয় বলে মনে হয় আপনি এই পর্যায়ে চেঞ্জ করে নিতে পারবেন নইলে আপনাকে সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে পরবর্তী মেনুতে যাওয়ার জন্য ।

9th Step; 

এবার আপনাকে অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে আপনার দ্বারা প্রদান করা ব্যাঙ্ক একাউন্টের ডিটেইলস সহ অন্যান্য সমস্ত তথ্যগুলি Preview Tap এ ক্লিক করে যাচাই করে নিতে হবে সবকিছু ঠিকঠাক আছে কি না । এবার আপনাকে Final Submit Tab এ ক্লিক করতে হবে।

10th Step; 

এর পরে অন্তিম পর্যায়ে সমস্ত কিছু যাচাইকরণের পর ফাইনাল Submit বাটনে ক্লিক করতে হবে । সাবমিট করার পরেই আপনি সম্পূর্ণ অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটি দেখতে পারবেন যার একটি প্রিন্ট আউট বের করে নিতে হবে নেবেন এবং উক্ত অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটির সাথে অন্যান্য প্রয়োজনীয় কিছু ডকুমেন্ট আপনি যে প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করছেন সেখানে জমা করে দিলেই আপনার ঐক্যশ্রী প্রকল্পের আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে । 

Kanyashree Prakalpa কি ? কেমন করে আবেদন করবেন সমস্ত তথ্য জানুন

   Aikyashree Scholarship এর জন্য প্রয়োজনীয়ও Documents:-

অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটির সাথে যেসমস্ত কাগজপত্রগুলি জমা দিতে হবে তা হলো – 

  1. আপনার নিজস্ব কমিউনিটি সার্টিফিকেট;
  2. আধার কার্ড বাঞ্ছনীয়;
  3. পারিবারিক ইনকাম সার্টিফিকেট;
  4. স্কুল/ কলেজ/ ইউনিভার্সিটির এই বছরের ভর্তির রশিদ; 
  5. আগের বছরের পাস করা মার্কশিট;
  6. ডোমিশীয়িল সার্টিফিকেট (সকলের জন্য প্রযোজ্য নয়); 
  7. ব্যাঙ্কের পাসবই; 
  8. কালার পাসপোর্ট সাইজের ছবি ।

 

Aikyashree Scholarship এর সিলেকশন প্রক্রিয়াঃ-

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের জন্য শিক্ষার্থীদের মূলত দুই রকম আবেদন পদ্ধতি থেকে সিলেকশন করা হয়ে থাকে । এই স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য ছাত্রছাত্রীরা Fresh Application এবং Renewal Application– এই দুই ভাবে আবেদন করতে পারবে । যেসকল শিক্ষার্থীরা প্রথমবারের জন্য আবেদন করবে তাদেরকে Fresh Application পদ্ধতিতে এবং যারা এর আগে আবেদন করেছেন বা স্কলারশিপের টাকা পেয়েছেন তাদের Renewal Application পদ্ধতিতে আবেদন করতে হবে । সমস্ত আবেদনগুলি সংশ্লিষ্ট স্কুলের নোডাল শিক্ষকদের দ্বারা যাচাই করা হয় তারপর যোগ্যতার মানদণ্ড অনুযায়ী নির্বাচন করে স্কলারশিপের প্রাপ্ত রাশি সরাসরি ছাত্রছাত্রীদের ব্যাংক একাউন্টে প্রদান করা । 

অফিশিয়াল হেল্পলাইন নাম্বারঃ

Help line number (Landline) – 033 4047 468 

WhatsApp number – 8017 071 714 

Email address – scholarship.wbmdfc@gmail.com

Toll free number – 1800-120-2130 

 Technical Support (Helpdesk) – 6290 87 5550

FAQ-

  1. Aikyashree Scholarship  এর Status কেমন করে চেক করবেন ?

    উ:- https://www.wbmdfc.org/ ওয়েবসাইটে ওপেন করতে হবে এবং তারপর আপনি ওয়েবসাইটের উপরের দিকেই Status Check করার অপশন পাবেন ।

2. Aikyashree Scholarship এর  প্রাপ্ত অর্থের পরিমাণ কি?

      উ:- ব্লগ এর উপরের সেকশনে দেখুন এ সম্বন্ধে বিস্তারিত চার্টের মাধ্যমে আলোচনা করা হয়েছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *