Kanyashree Prakalpa in Bengali, Learn about Kanyashree K1, K2, K3 2022: Status Check , Eligibility, Amount!

2017 সালের জুন মাসের রাষ্ট্রসংঘ থেকে “সর্বোচ্চ পাবলিক সার্ভিস ”  পুরস্কার হিসাবে Kanyashree Prakalpa সম্মানিত করা হয়, যা প্রতিটি বাঙালির গর্বের বিষয় । এই ঘোষণার কিছুকাল পরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রকল্পটিকে আরও উন্নত করে তোলার উদ্দেশ্যে 14 ই আগস্ট দিনটিকে Kanyashree  দিবস হিসেবে উদযাপন করা শুরু করেন ।এখনো পর্যন্ত 2,40,63,439 জন ছাত্রীরা Kanyashree Prakalpa এর জন্য আবেদন করেছে । আশা করি এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনার Kanyashree Prakalpa এর সম্বন্ধিত সমস্ত সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

সূচি

Kanyashree Prakalpa কী?

পশ্চিমবঙ্গে নারী শিক্ষার অগ্রগতির জন্য অনেক প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম একটি Kanyashree Prakalpa । বর্তমান সময়ে পশ্চিমবঙ্গের গ্রাম্য সমাজে বাল্যবিবাহ একটি উল্লেখযোগ্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মেয়েরা প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগেই পরিবার থেকে তাদের বিবাহ দেওয়া হচ্ছে। ফলে বাংলার মেয়েরা প্রায়ই বিভিন্ন কঠিন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে অথবা অপুষ্টিকর বাচ্চার জন্ম দিচ্ছে। এছাড়াও মেয়েরা পর্যাপ্ত শিক্ষা গ্রহণ করতে না পারার ফলে নিজেদের সন্তানদেরও যথাযথ শিক্ষা প্রদান করতে পারছে না। এই সমস্ত সমস্যাগুলির সমাধান খুঁজতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে বিভিন্ন আমলা থেকে শুরু করে সমস্ত বুদ্ধিজীবী মহলকে। 2013 সালে 4th মার্চ তৎকালীন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় এই Kanyashree Prakalpa নামক একটি নতুন প্রকল্প চালু করে শিশু ও নারী উন্নয়ন এবং সমাজ কল্যাণ দপ্তর ।

Daily GK এবং Current Affair এর MCQ প্রশ্ন Practice করার জন্য ক্লিক করুন

Kanyashree Prakalpa প্রদানের উদ্দেশ্য কী ?

এই প্রকল্পটি সম্পূর্ণরূপে মেয়েদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন করার উদ্দেশ্যে চালু করা হয়েছে । সাধারণত গ্রাম বাংলায় দেখা যায় মেয়েদের খুব কম বয়সেই বিয়ে হয়ে যায়, যার অন্যতম মূল কারণ অর্থনৈতিক দুর্বলতা এবং সামাজিক সমস্যা এবং এর ফলে দেখা যাচ্ছে বেশিরভাগ মেয়েরা  অপুষ্টি, মা ও শিশু মৃত্যু, নির্ধারিত শারীরিক পরিপূর্ণতার আগে গর্ভধারণ সংক্রান্ত জটিলতা ও অন্যান্য শারীরিক অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছে, তাই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানত গ্রাম বাংলার যুবতী মেয়েদের স্বাবলম্বী করার উদ্দেশ্যে এই প্রকল্পটি গ্রহণ করেছিলেন । এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য পশ্চিমবঙ্গের সকল কন্যা সন্তানদের অর্থনৈতিকভাবে সাহায্য প্রদান করে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ এবং তাদের সঠিক শিক্ষার বন্দোবস্ত করে সুন্দর ভবিষ্যত প্রদান করা ।

Kanyashree Prakalpa এর জন্য কারা আবেদন করতে পারবেন ?

পশ্চিমবঙ্গের যে সমস্ত শিক্ষার্থীরা 14 বছরের ঊর্ধ্বে তারা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবো। তবে প্রকল্পের আবেদন করার জন্য শিক্ষার্থীদের সরকার স্বীকৃত একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হবে। 13-18 বছরের সমস্ত অবিবাহিত মেয়েরা যারা সরকার স্বীকৃত অথবা সমমানের  বিদ্যালয় এ  VIII -XII ক্লাসে পড়াশোনা করছে তারা সকলেই এর জন্য আবেদন করতে পারবে।

Kanyashree Prakalpa এর Benefits:-

আবেদনকারীর বয়স অনুসারে Kanyashree এর কে মূলত তিন ভাগে ভাগ করা হয় যথা।

  • K1 এর মাধ্যমে অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর মধ্যে পাঠরত মেয়েরা বার্ষিক 750 টাকা করে পাবে।
  • K- 2 এর মাধ্যমে 18 বছরের উর্দ্ধে মেয়েরা এককালীন 25000 টাকা অনুদান পাবেন ।
  • K3 এর মাধ্যমে  Post Graduation এ পাঠরত ছাত্রীরা প্রতিমাসে 2500 টাকা পর্যন্ত অনুদান পাবেন।

Swami Vivekananda Scholarship 2021 এর Eligibility Criteria, Scholarship Amount, Last Date ?

Kanyashree PrakalpaBenifit in INR
Kanyashree K1750 টাকা প্রতিমাসে
Kanyashree K2এককালীন 25000 টাকা
Kanyashree K3Arts, Commerce Students এর ক্ষেত্রে 2000 টাকা প্রতি মাসে এবং Science Students এর ক্ষেত্রে  মাসিক 2500 টাকা

Kanyashree Prakalpa এর Eligibility:-

পৃথকভাবে আমরা K1, K2 & K3 এর Eligibility আলোচনা করেছি। জানার জন্য উক্ত সেকশন দেখুন।

Kanyashree  K 1 Eligibility:-

  • আবেদনকারী শিক্ষার্থীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই অবিবাহিত হতে হবে।
  • আবেদনকারীর Family Income বার্ষিক 1,20,000 এর বেশী হওয়া চলবে না ।
  • আবেদনকারী ছাত্রীর বয়স হতে হবে 13 থেকে 17 এর মধ্যে হতে হবে।
  • আবেদনকারীর বয়স 18 এর বেশি হওয়া উচিত নয় । যদি আবেদনকারীর বয়স 18 এর বেশী হয় তাহলে তিনি আর কোন বার্ষিক বৃত্তি সুবিধা পাবেন না , শুধুমাত্র এককালীন অর্থের সুবিধা পাবেন সেক্ষেত্রে।
  • মহিলা শিক্ষার্থীকে অবশ্যই সরকার স্বীকৃত নিয়মিত বা সমমানের স্কুলে বা সমমানের বৃত্তিমূলক বা অন্য কোনও প্রযুক্তিগত প্রশিক্ষণ কোর্সে 8 থেকে 12 তম শ্রেণির মধ্যে নথিভুক্ত হতে হবে।
  • নিম্নলিখিত পরিস্থিতিতে পারিবারিক আয়ের সীমা পরিবর্তিত হতে পারে।
  1. ছাত্রী যদি প্রতিবন্ধী হয় ।
  2. যদি আবেদনকারী আগেই এর জন্য আবেদন করে থাকে Renewal এর ক্ষেত্রে।
  3. ছাত্রীর পিতা মাতা উভয়েই মৃত হলে।

Aikyashree Scholarship (ঐক্যশ্রী প্রকল্প 2021) কি ,তারিখ, যোগ্যতা সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

Kanyashree  K 2 Eligibility:-

  • আবেদনকারী শিক্ষার্থীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই অবিবাহিত হতে হবে18 বছর বয়স পর্যন্ত।
  • আবেদনকারীর Family Income বার্ষিক 1,20,000 এর বেশী হওয়া চলবে না ।
  • মহিলা শিক্ষার্থীকে উচ্চশিক্ষার জন্য সরকার স্বীকৃত বোর্ড থেকে Regular Course এ ভর্তি হতে হবে।
  • নিম্নলিখিত পরিস্থিতিতে পারিবারিক আয়ের সীমা পরিবর্তিত হতে পারে।
  1. ছাত্রীর পিতা মাতা উভয়েই মৃত হলে।
  2. ছাত্রী যদি প্রতিবন্ধী হয় ।

Kanyashree  K 3  Eligibility:-

  • আবেদনকারী শিক্ষার্থীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
  • Kanyashree K2 এর জন্য Register আবেদনকারীরা শুধুমাত্র আবেদন করতে পারবেন। K3 এর জন্য।
  • K3 এর আবেদনের জন্য নির্দিষ্ট কোন Age Limit নেই।
  • শিক্ষার্থীকে অবশ্যই 45% সহকারে Undergraduate Degree পাশ হতে হবে।
  • সরকার কর্তৃক স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে Post Graduation এর জন্য ভর্তি হতে হবে।

Kanyashree Prakalpa এর Important Dates:-

2013 থেকে প্রদান শুরু হয়ে গেছে Kanyashree Prakalpa এর জন্য আবেদন । আবেদন শুরুর কোনো নির্দিষ্ট তারিখ নিয়ে সারা বছরই এই প্রকল্প আবেদন ও অর্থপ্রদান চলতে থাকে।

Kanyashree Prakalpa এর Selection Process :-

এই প্রকল্পের ক্ষেত্রে বিশেষ কোনো নির্বাচনী প্রক্রিয়া নেই। 14 বছরের উর্ধ্বে যে সমস্ত ছাত্রীরা কোন একটি সরকার স্বীকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা চালিয়ে যাবে তারা সকলে এই Prakalpa পাওয়ার যোগ্য।

OASIS Scholarship for ST, SC & OBC (2021-22) এর জন্য কেমন করে আবেদন করবেন ?

Kanyashree Prakalpa এর Distribution Process :-

Kanyashree  Prakalpa এর জন্য আবেদন করার পরে Direct Benefit Transfer (DBT) মোডে সমস্ত ছাত্রীদের নিজস্ব Bank Account এই Kanyashree প্রকল্পের টাকাগুলি প্রদান করা হয়। এই টাকা প্রদানের ক্ষেত্রে বিশেষ কোন বিভাজন তৈরী করা হয়নি। ধনী, দরিদ্র, মেধাবী, তপশিলি জাতি ভুক্ত, সংখ্যাগুরু অথবা সংখ্যালঘু সমস্ত শ্রেণীর ছাত্রীদের ক্ষেত্রে এই স্কলারশিপের পরিমাণ সমান।

Kanyashree Prakalpa এর Application Process :-

Kanyashree  K1,K2,K3 এর জন্য Application Process কিছুটা আলাদা। K1,K2 এর জন্য আবেদন Offline Form Fill Up এর মাধ্যমে করতে হবে যার পদ্ধতি নিম্নে  বর্ণনা করা হলো।

Kanyashree  K1,K2 Application Process :-

  • KanyashreePrakalpa এর অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার স্কুল বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে Kanyashree  Form  সংগ্রহ করতে হবে ।
  • তারপর সেই Form সর্তকতা অবলম্বন করে Fill Up করতে হবে এবং নিম্নে প্রদান করা প্রয়োজনীয় Documents গুলি সংগ্রহ করে পুনরায় সেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বা স্কুলে জমা দিতে হবে ।
  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে আপনাকে আপনার Kanyashree Application ID প্রদান করা হবে আপনার Application Track করার জন্য আপনি নিন্মে প্রদান করা  লিংক  ভিসিট করতে পারেন এবং একই ভাবে আপনি এই ওয়েবসাইট এ আপনার কোনো সমস্যা থাকলে জানাতে পারবেন । এই প্রকল্প সম্বন্ধিত সব তথ্য জানার জন্য লিংক টি ভিসিট করুন।

Kanyashree  K3 Application Process :-

  • Kanyashree K3 এর জন্য আবেদনের জন্য ভিসিট করুন https://svmcm.wbhed.gov.in/ SVMCM এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট।
  • সর্বপ্রথম অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে Registration করুন Registration সম্পন্ন হয়ে গেলে Kanyashree Prakalpa (K3) তে ক্লিক করুন।
  • যথাযথ তথ্য প্রদান করে Application Form পূরণ করুন এবং Submit করুন। সম্পূর্ণ Application Process সম্বন্ধে জানার জন্য নিম্নে প্রদান করা লিংকে ক্লিক করুন।

Kishore Vaigyanik Protsahan Yojana (KVPY) 2022-23 Eligibility, Admit Card, Syllabus, Pattern, Result, Cutoff

Kanyashree Prakalpa এর আবেদনের জন্য Important Documents:-

আবেদন করার সময়ই শিক্ষার্থীদের যে সমস্ত ডকুমেন্টগুলি প্রয়োজন সেগুলি হল –

  • ছাত্রীর Birth Certificate,
  • Aadhar Card,
  • School Certificate
  • Family Income Certificate ,
  • অভিভাবক কর্তৃক অবিবাহিতা সার্টিফিকেট;
  • Passport Size Photo
  • যে কোন রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের একটি Savings Bank Account ।

Kanyashree Prakalpa এর Renewal :-

  • K1 – Form এর ক্ষেত্রে ছাত্রীরা একবার Form Fill Up করার পরে তাদের আঠারো বছর বয়স পর্যন্ত প্রত্যেক বছর 750 টাকা করে Scholarship পাবে। ছাত্রীদের বয়স 18 পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত Kanyashree Prakalpa কোন প্রকার Renew করতে হবে না।
  • K2 ক্যাটাগরির ক্ষেত্রে ছাত্রীদের বয়স 18 বছর পূর্ণ হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে তাদের K2 Form Fill Up করে দেওয়া হবে এবং ছাত্রীরা এককালীন 25000  টাকা Scholarship পাবে। Graduation Degree সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত Scholarship Renew  করা যাবে না।
  • K3 ফর্ম এর ক্ষেত্রে অর্থাৎ Post Graduation Degree তে আবেদনকারী ছাত্রীরা দুই বছরের Post Graduation Degree তে মোট 48000 টাকা Scholarship পাবে। এই ক্ষেত্রেও Scholarship Renew করতে হবে না।

URAM Scholarship Program 2022-23 : Application Process, Last Date, Eligibility, Renewal etc.

Kanyashree Prakalpa এর টাকা কখন (Duration) দেওয়া হয় ?

পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন সরকার অনুমোদিত বিদ্যালয়ে মেয়ে শিক্ষার্থীরা অষ্টম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হলে এই Scholarship জন্য আবেদন করতে পারবে। এরপরে ধারাবাহিকভাবে পরবর্তী শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হলে সর্বাধিক Post Graduation  স্তর পর্যন্ত ছাত্রীরা এই Scholarship পেয়ে থাকে। বিদ্যালয় স্তর, Undergradute স্তর এবং Post Graduation স্তরের ছাত্রীদের জন্য এই Prakalpa এর তিনটি বিভাগ রয়েছে যথা ক্রমে K1, K2 এবং K3।

Kanyashree Prakalpa এর Bank Account Details :-

এই Prakalpa এর টাকা গ্রহণ করার জন্য শিক্ষার্থীদের নিজেদের নামে একটি Valid Bank Account থাকতে হবে।

Kanyashree Prakalpa এর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যসমুহঃ

  1. বর্তমানে (2021Kanyashree Prakalpa এর মাধ্যমে 2,14,50,980 জন মেয়েকে সাহাজ্য করা হয়েছে ।
  1. এই পর্যন্তকন্যাশ্রী প্রকল্পটি দেশে বিদেশে প্রচুর সন্মান এবং পুরুস্কার অর্জন করে ফেলেছে । যেমন-
  • 2014 সালে  Manthan Award (South Asia and Asia Pacific), Empowerment of Girls Award এবং CSI-Nihilent Award.
  • 2015 সালে  Skoch Award and Order of Merit এবং National E-governance Award 2014 – 2015.
  •  2016 সালে GEM-Tech Awards এবং United Nations WSIS Prize 2016 Champion.
  • 2017 সালে UNPSA Award.

যাইহোক, স্বাধীনতার পর থেকে চলে আসা নারী উন্নয়নের বর্তমান সময়ের এক উল্লেখযোগ্য মিশাল এই কন্যাশ্রী প্রকল্প । Kanyashree Prakalpa  সবথেকে আকর্ষণীয় বিষয় হল, এখানে ছাত্রীরা তাদের প্রাপ্য আনুদানের টাকা সরাসরি নিজের ব্যাংক একাউন্ট এ পেয়ে যাচ্ছেন । এই প্রকল্পের কিছু অসুবিধা থাকা সত্ত্বেও এটি পশ্চিমবঙ্গের সাধারন মানুষদের কাছে এক অনন্য উপহার ।

Abdul Kalam Technology Innovation National Fellowship 2022-23 : Last Date, Application Process, Eligibility !

Kanyashree Prakalpa Track Application Status:-

যদি আপনি ইতিমধ্যে এর জন্য আবেদন করে থাকেন এবং Application Form এর Status ও জানতে চান , তাহলে অবশ্যই প্রদান করা লিংক https://wbkanyashree.gov.in/kp_track_status.php

ক্লিক করুন।

Application Form এর Status Check করার জন্য আপনাকে Year, Type of Scheme, Application ID, DOB (DD/MM/YYYY) ফরমেট এ ও Captcha প্রদান করুন।

Kanyashree Prakalpa Help Line Number :-

Kanyashree Prakalpa এর বিভিন্ন জেলার অন্তর্ভুক্ত Nodal Office তথা সম্পূর্ণ Contact Details নিম্নে প্রদান করা PDF এর মাধ্যমে বর্ণনা করা হলো। আপনি যে জেলার বাসিন্দা সেই জেলার নির্ধারিত Telephone No ও Email ID এ যোগাযোগের মাধ্যমে আপনার সমস্ত সমস্যার সমাধান হতে পারে। বিস্তারিত জানার জন্য PDF File টি Download করুন ।

College Board India Scholars Program 2022-23 : Eligibility, Last Date, Application Process, Renewal, Dates !

Kanyashree Prakalpa Download Section:-

Kanyashree K1 Application FormClick Here
Kanyashree K2 Application FormClick Here
Kanyashree K3 Apply OnlineClick Here
Kanyashree Guidelines DownloadClick Here
Kanyashree  Help Line NumberClick Here
Kanyashree Officer WebsiteClick Here

ICICI Bank iSMART Education Loans 2022-23: Now Get 1 Crore Education Loan Easily, Learn More !

FAQ:-

1. Kanyashree Help Line Number কি?

 ANS:- জেলা ভিত্তিক Kanyashree Prakalpa এর Helpline Number PDF ফরমেটে বর্ণনা করা হয়েছে জানার জন্য PDF File টি Download করুন।

2. Kanyashree K1 Amount 2022 কি?

 ANS:- 750 টাকা প্রতিমাসে।

3. Kanyashree K2 Amount 2022 কি?

 ANS:- এককালীন 25000 টাকা।

4. Kanyashree Log In কোন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে করা যেতে পারে?
5. Kanyashree K2 Status কোন  ওয়েবসাইট থেকে জানা যেতে পারে?
6. Kanyashree K2 Form List কোথায় পাবেন?

 ANS:- Download সেকশন এ ক্লিক করুন Form List Download এর জন্য।

7. Kanyashree Prakalpa Starting Date কি?

ANS:- On August 14, 2013

8. Kanyashree Prakalpa PDF কেমন করে Download করবেন?

ANS:- Download সেকশন এ ক্লিক করুন PDF Download করার জন্য।

9. Kanyashree Prakalpa এর মাধ্যমে বৃত্তি প্রদানের প্রধান ভিত্তি কী ?

ANS:- এই বৃত্তি প্রদানের প্রধান ভিত্তি হলো সমাজ থেকে বাল্য বিবাহ সম্পূর্ণরূপে উচ্ছেদ করা। এর সাথে সাথে পশ্চিমবঙ্গের শিশুকন্যাদের সুশিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে প্রগতিশীল ও বিচারবুদ্ধি সম্পন্ন নারী সমাজ গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে এই প্রকল্প চালু করা হয়েছে।

10. Kanyashree Prakalpa এই প্রকল্পের সুবিধা পেতে গেলে শিক্ষার্থীদের Highest Family Income সর্বাধিক কত হতে পারে ?

ANS:- যে সমস্ত শিক্ষার্থীদের পরিবারের বার্ষিক আয় 1 Lakh 20 হাজার টাকার কম তারা এই প্রকল্পের আর্থিক সহায়তা পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবে।

11. Kanyashree Prakalpa আবেদন এর জন্য নূন্যতম বয়স কত হতে হবে ?

 ANS:- যে সমস্ত শিক্ষার্থীদের বয়স 13 বছর পূর্ণ হয়েছে এবং যারা অষ্টম শ্রেণীতে পড়ছে তারা এই প্রকল্পের প্রাথমিক পর্যায়ের জন্য আবেদন করতে পারবে।

12. Prakalpa এর টাকা পেতে গেলে শিক্ষার্থীদের নিজস্ব Bank Account  থাকা কি আবশ্যক ?

ANS:- হ্যাঁ, এই Prakalpa এর  টাকা পেতে গেলে শিক্ষার্থীদের নিজেদের নামে একটি Bank Account  অবশ্যই থাকতে হবে। Prakalpa এর  জন্য আবেদন করার পরে Direct Benefit Transfer (DBT) মোডে সমস্ত ছাত্রীদের নিজস্ব Bank Account  এ এই Kanyashree Prakalpa এর   টাকাগুলি প্রদান করা হয়।

Leave a Comment

error

শিক্ষা জগৎ সহ চাকরি সংক্রান্ত সমস্ত আপডেট বাংলায় পাওয়ার জন্য ফলো করুন