Kanyashree Prakalpa কি ? কেমন করে আবেদন করবেন সমস্ত তথ্য জানুন

 

পশ্চিমবঙ্গে নারী শিক্ষার অগ্রগতির জন্য অনেক প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম একটি কন্যাশ্রী প্রকল্প ।  2013 সালে 4th মার্চ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় এই প্রকল্পটি চালু করে শিশু ও নারী উন্নয়ন এবং সমাজ কল্যাণ দপ্তর । 2017 সালের জুন মাসের রাষ্ট্রসংঘ থেকে “সর্বোচ্চ পাবলিক সার্ভিস ”  পুরস্কার হিসাবে Kanyashree Prakalpa সম্মানিত করা হয়, যা প্রতিটি বাঙালির গর্বের বিষয় । এই ঘোষণার কিছুকাল পরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রকল্পটিকে আরও উন্নত করে তোলার উদ্দেশ্যে 14 ই আগস্ট দিনটিকে Kanyashree  দিবস হিসেবে উদযাপন করা শুরু করেন ।

Kanyashree Prakalpa চালু করার উদ্দেশ্য কী ? 

এই প্রকল্পটি সম্পূর্ণরূপে মেয়েদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন করার উদ্দেশ্যে চালু করা হয়েছে । সাধারণত গ্রাম বাংলায় দেখা যায় মেয়েদের খুব কম বয়সেই বিয়ে হয়ে যায়, যার অন্যতম মূল কারণ অর্থনৈতিক দুর্বলতা এবং সামাজিক সমস্যা এবং এর ফলে দেখা যাচ্ছে বেশিরভাগ মেয়েরা  অপুষ্টি, মা ও শিশু মৃত্যু, নির্ধারিত শারীরিক পরিপূর্ণতার আগে গর্ভধারণ সংক্রান্ত জটিলতা ও অন্যান্য শারীরিক অসুবিধায় আক্রান্ত হচ্ছে, তাই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানত গ্রাম বাংলার যুবতী মেয়েদের স্বাবলম্বী করার উদ্দেশ্যে এই প্রকল্পটি গ্রহণ করেছিলেন । এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য পশ্চিমবঙ্গের সকল কন্যা সন্তানদের অর্থনৈতিকভাবে সাহায্য প্রদান করে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ এবং তাদের সঠিক শিক্ষার বন্দোবস্ত করে সুন্দর ভবিষ্যত প্রদান করা । 

Daily GK এবং Current Affair এর MCQ প্রশ্ন Practice করার জন্য ক্লিক করুন

কারা কারা Kanyashree Prakalpa প্রকল্পের লাভ নিতে পারবে ?

সরকার স্বীকৃত উচ্চ মাধ্যমিক  বিদ্যালয় ও এই ধরণের সকল  বৃত্তিমূলক কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে পাঠরত সমস্ত অবিবাহিত মেয়েরা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবে । এক্ষেত্রে সমস্ত মেয়েদের বয়স ভিত্তিক দুটি শ্রেনীতে ভাগ করা হয়েছে যথা – K 1K 2 । নিচের চার্ট টি দেখে আপনি সম্পূর্ণ তথ্য জানতে পারবেন K 1K 2 এর এপ্লিকেশন সাবমিট এর জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা ।

(K- 1)

(K- 2)

ছাত্রীর বয়স 13 বছরের বেশি ও 18 বছরের কম হতে হবে । ছাত্রীর বয়স অবশ্যই 18 বছরের বেশি ও 19 বছরের কম হতে হবে ।
ছাত্রীকে অন্তত (viii) শ্রেণীতে পাঠরতা হতে হবে । ছাত্রীকে মাধ্যমিক, উচ্চ-মাধ্যমিক, কারিগরি, বৃত্তিমূলক, ক্রীড়াবিষয়ক ইত্যাদি যে কোনো বিষয়ে স্বীকৃতমূলক প্রতিষ্ঠানে পাঠরত অবস্থায় থাকতে হবে ।
ছাত্রীর পারিবারিক আয় বাৎসরিক অনধিক 1,20,000 টাকা হতে হবে । (একই)
ছাত্রীকে অবশ্যই অবিবাহিতা হতে হবে । (একই)

Swami Vivekananda Merit cum Means Scholarship কি ? কেমন করে আবেদন করবেন ?

Kanyashree Prakalpa এর  মাধ্যমে কত টাকা অনুদান দেওয়া হয় ? 

  •   K- 1 অর্থাৎ অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর মধ্যে পাঠরত মেয়েরা বার্ষিক 750 টাকা করে পাবেন । 
  • K- 2 অর্থাৎ 18 বছরের উর্দ্ধে মেয়েরা এককালীন 25000 টাকা অনুদান পাবেন ।

Kanyashree Prakalpa এর  আবেদকরার সময় কী কী লাগবে ?

  • ছাত্রীর জন্ম সার্টিফিকেট;
  •  আধার কার্ড;
  •  স্কুল সার্টিফিকেট;
  • পারিবারিক ইনকাম সার্টিফিকেট; 
  • অভিভাবক কর্তৃক অবিবাহিতা সার্টিফিকেট;
  • পাসপোর্ট সাইজ ছবি;
  • যে কোন রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের একটি সেভিংস একাউন্ট ।

Kanyashree Prakalpa এর জন্য কিভাবে আবেদন করবেন ?

কন্যাশ্রী প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার স্কুল বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে কন্যাশ্রী ফর্ম সংগ্রহ করতে হবে । তারপর সেই ফর্ম এর সর্তকতা অবলম্বন করে ফিলাপ করতে হবে এবং উপরে দেওয়া প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলি সংগ্রহ করে পুনরায় সেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বা স্কুলে জমা দিতে হবে । আপনার কন্যাশ্রী এপ্লিকেশন ট্র্যাক করার জন্য আপনি নিন্মে দেওয়া লিংক  ভিসিট করতে পারেন এবং একই ভাবে আপনি এই ওয়েবসাইট এ আপনার কোনো সমস্যা থাকলে জানাতে পারবেন । এই প্রকল্প সম্বন্ধিত সব তথ্য জানার জন্য লিংক টি ভিসিট করুন।

Click Here to Open

Kanyashree Prakalpa এর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যসমুহঃ- 

  1. বর্তমানে (2021) Kanyashree Prakalpa এর মাধ্যমে 2,14,50,980 জন মেয়েকে সাহাজ্য করা হয়েছে ।

      2. এই পর্যন্ত কন্যাশ্রী প্রকল্পটি দেশে বিদেশে প্রচুর সন্মান এবং পুরুস্কার অর্জন করে ফেলেছে । যেমন-

  • 2014 সালে  Manthan Award (South Asia and Asia Pacific), Empowerment of Girls Award এবং CSI-Nihilent Award.
  • 2015 সালে  Skoch Award and Order of Merit এবং National E-governance Award 2014 – 2015.
  •  2016 সালে GEM-Tech Awards এবং United Nations WSIS Prize 2016 Champion.
  • 2017 সালে UNPSA Award.

 

   যাইহোক, স্বাধীনতার পর থেকে চলে আসা নারী উন্নয়নের বর্তমান সময়ের এক উল্লেখযোগ্য মিশাল এই কন্যাশ্রী প্রকল্প । Kanyashree Prakalpa  সবথেকে আকর্ষণীয় বিষয় হল, এখানে ছাত্রীরা তাদের প্রাপ্য আনুদানের টাকা সরাসরি নিজের ব্যাংক একাউন্ট এ পেয়ে যাচ্ছেন । এই প্রকল্পের কিছু অসুবিধা থাকা সত্ত্বেও এটি পশ্চিমবঙ্গের সাধারন মানুষদের কাছে এক অনন্য উপহার ।

SC, ST এবং OBC স্কলারশিপ কী ? কিভাবে এই স্কলারশিপ পাবেন ?

Leave a Comment